Spread the love

দ্রৌপদী এ সমাজের মেয়েদের মতো কোনও সাধারন মেয়ে ছিলেন না।দ্রুপদ রাজার যঞ্জের অগ্নি থেকে তাঁর জন্ম হয়েছিল। পূর্বজীবনে তিনি এক ঋষির কন্যা ছিলেন।অতি কঠোর তপস্যা করে তিনি মহেশ্বরের প্রীতি সাধন করেছিলেন।তখন প্রসন্ন হয়ে শিব তাঁকে বর দিতে চাইলে তিনি করজোড়ে শিবের কাছে পতি লাভের বাসনা ব্যাক্ত করেন।হে মহাদেব, যদি প্রসন্ন হয়ে থাকেন, তবে যাতে আমি সর্বগুণ সম্পন্ন পতি লাভে চরিতার্থ হতে পারি, এরূপ বর প্রদান করুন।এই কথা পাঁচবার উচ্চারন করেন এবং প্রতিবারই মহাদেব “তথাস্তু ” বলেছিলেন।তারপর মহাদেব বলেন, হে কন্যা, তুমি পাঁচবারই পতি বাসনা করেছ, তাই পরজন্মে রাজকন্যা রূপে জন্ম নিয়ে দেব গুনসম্পন্ন পঞ্চপতি লাভ করবে।তারপর পরজন্মে সেই ঋষিকন্যা মহর্ষি উপযাজ কৃত যঞ্জ থেকে আবিভূতা হন।দ্রুপদ রাজার কন্যারূপে তিনি দ্রৌপদী নামে আখ্যাতা হন।তাঁর পঞ্চপতি হওয়া সত্তেও তিনি সতী নামে বিখ্যাত হন।

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.